১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

ভ্যাট ফাঁকির ৭৫ কোটি টাকা দিচ্ছে না গ্রামীণফোন!

ডেস্ক রিপোর্ট : বেসরকারি মুঠোফোন অপারেটর গ্রামীণফোন ভ্যাট ফাঁকির ৭৫ কোটি টাকা পরিশোধ করছে না। টাকা না দিতে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তিতে (এডিআর) না এসে প্রতিষ্ঠানটি উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে।

অথচ অন্য দুই মুঠোফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা ও বাংলালিংক এডিআরে এসে ইতোমধ্যে ভ্যাট ফাঁকির টাকা পরিশোধ করে দিয়েছে।

বৃহৎ করদাতা ইউনিট এলটিইউ (ভ্যাট) সূত্রে মঙ্গলবার এসব তথ্য জানা গেছে।

তথ্যানুযায়ী, ৩ মুঠোফোন অপারেটরের বিরুদ্ধে বাণিজ্যিক স্পেসের ভাড়ার উপর ভ্যাট বাবদ প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ফাঁকির তথ্য উদঘাটন করে এলটিইউ ভ্যাট। এরমধ্যে শুধুমাত্র গ্রামীণফোণের ভ্যাট ফাঁকির পরিমাণই প্রায় ৭৫ কোটি টাকা। আর রবির ২৮ কোটি ৫৬ লাখ এবং বাংলা লিংকের ৪৭ কোটি ১৯ লাখ টাকা ভ্যাট ফাঁকির তথ্য বেরিয়ে আসে।

জানা গেছে, তথ্য উদঘাটনের পর এলটিইউ এসব প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে অর্থ আদায়ে দাবিনামা জারি করে। দাবিনামা জারির পর বাংলালিংক ও রবি অজিয়াটা আত্মপক্ষ সমর্থন করে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহা করে এবং ফাঁকি দেওয়া ভ্যাট রাজস্ব পরিশোধ করতে সম্মত হয়। ইতিমধ্যে রবি ২৮ কোটি ৫৬ লাখ টাকা ও বাংলালিংক ৪৭ কোটি ১৯ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়েছে।

ভ্যাট এলটিইউ কমিশনার পদবীর এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, রবি ও বাংলালিংক ফাঁকি দেওয়া রাজস্ব পরিশোধ করলেও এখনো গ্রামীণফোন পরিশোধ করেনি। টাকা না দিতে তারা আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে। তাদেরকে এডিআরে এসে বিষয়টি নিষ্পত্তি করার জন্য বলা হলেও তারা এডিআরে আসেনি। অথচ অন্য দুই অপারেটর এডিআরে এসে সরকারের প্রাপ্য রাজস্ব পরিশোধ করেছে।

এ অবস্থায় গ্রামীণফোন থেকে ৭৫ কোটি টাকা আদায়ে ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হতে পারে বলেও জানান তিনি।

বিষয়টি নিয়ে গ্রামীণফোনের হেড অব এক্সটারনাল তালাত কামাল টেলিফোনে বলেন, সর্বশেষ বছরেও আমরা এনবিআরকে ৮ হাজার ৪২০ কোটি টাকা ট্যাক্স দিয়েছি। সুতরাং ৭৫ কোটি টাকা গ্রামীণফোনের জন্য কিছুই না। তবে আমরা চাইলেই এনবিআরকে ৭৫ কোটি টাকা দিয়ে দিতে পারি না। আমাদের শেয়ার হোল্ডারদের স্বার্থও দেখতে হয়।

তিনি বলেন, বাণিজ্যিক স্পেসের ভাড়ার উপর ভ্যাট বাবদ ৭৫ কোটি টাকা ফাঁকির অভিযোগ নিয়ে এনবিআরের সঙ্গে গ্রামীনফোনের মতবিরোধ আছে। তাই আমরা এটা দিচ্ছি না। আমরা মনে করছি এনবিআর যেটা দাবি করছে এটার পরিমাণ তারচেয়ে আরো কম হবে। তাই বিষয়টি নিয়ে আদালতে গিয়েছি।

রবি-বাংলালিংক এডিআরে এসে বিষয়টি সমাধান করেছে আপনারা করবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তালাত কামাল বলেন, রবি ও বাংলালিংক যেহেতু এসেছে ভবিষতে প্রয়োজন হলে আমরা এডিআরে আসবো। -পরিবর্তন ডট কম

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
ফেব্রুয়ারি ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জানুয়ারি   মার্চ »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া