৯ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৫শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ করে বিএনপির ৬৮ প্রার্থী মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ করে এখন পর্যন্ত বিএনপির ৬৮ জন প্রার্থী মামলা করেছেন। সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে ধানের শীষের প্রার্থীরা এসব মামলা করেন।

বৃহস্পতিবার ৬১ জন প্রার্থী মামলা করেন। এর আগে বুধবার সাতজন প্রার্থী মামলা করেছিলেন। বরিশাল ও রংপুর বিভাগের প্রার্থীরা বেশি মামলা করেছেন বলে বিএনপির আইনজীবীরা জানিয়েছেন।

মামলায় সবাই একই ধরনের অভিযোগ এনেছেন। তারা নির্বাচন বাতিল করে আবার ভোট করার দাবি জানিয়েছেন।

মামলার অভিযোগগুলোতে গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জালভোট, কেন্দ্র দখল, এজেন্টদের বের করে দেওয়া, আগের রাতে ব্যালটে সিল মারা, প্রার্থীদের হামলা, গ্রেপ্তারসহ নানা হয়রানির কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি এই নির্বাচন বাতিলের দাবি তুলেছেন।

বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচনী এসব মামলা পরিচালনার করার জন্য বিএনপি দলীয় সমর্থকদের আইনজীবীদের নিয়ে এটি প্যানেল করেছে। কয়েকজন জ্যেষ্ঠ আইনজীবীকে এ সব মামলা পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘বৃহস্পতিবার মামলা করেছেন ঢাকা-৫ আসনের বিএনপির প্রার্থী নবী উল্লাহ নবী, ঢাকা-২ আসনের প্রার্থী ইরফান ইবনে আমান, মানিকগঞ্জ-২ আসনের প্রার্থী মঈনুল ইসলাম খান শান্ত, নরসিংদী-৫ আসনে প্রকৌশলী আশরাফ উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের নজরুল ইসলাম আজাদ।’

তিনি জানান, এর আগে বুধবার মামলা বরিশাল-১ আসনের প্রার্থী জহির উদ্দিন স্বপন, গাজীপুর-৪ আসনের প্রার্থী শাহ রিয়াজুল হান্নান, মৌলভীবাজার-৩ আসনের নাসের রহমান, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের আবদুল হাই ও ভোলা-২ আসনের প্রার্থী মো. হাফিজ ইব্রাহিম, ঝিনাইদহ-৪ আসনের বিএনপির প্রার্থী সাবেক ছাত্রনেতা সাইফুল ইসলাম ফিরোজ ও টাঙ্গাইল-৭ আসনের প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী মামলা করেন।

তবে গণফোরাম নেতা সুব্রত চৌধুরী কতগুলো মামলা হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি। তিনি বলেছেন, ‘এখন পর্যন্ত কতটি মামলা হয়েছে, তা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। আমি বাদি হয়ে একটি করেছি। এ ছাড়া ঢাকা-১৯ আসনের দেওয়ান মোহাম্মদ সালাউদ্দিন এবং সিলেট-২ আসনের শফি আহমেদ চৌধুরীর হয়ে দুটো মামলা করেছি।’

মামলা করলে আসলে কোনো ফল হবে কি-না জানতে চাইলে সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘আজ পর্যন্ত এ ধরনের কোনো মামলার ভালো সুরাহা হয়নি। কোথাও না কোথাও আটকে যায়। আমরা যদি মামলা জয়ী হই, দেখা যাবে আপিল বিভাগে তা আটকে যাবে। এই করতে করতে পাঁচ বছর কেটে যাবে। তবে মামলা করে রাখলাম, রেকর্ড থাকলো’।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট ৩০০ আসনের মধ্যে ২৮৬টিতে জয় পেয়েছে। অন্যদিকে বিএনপির সঙ্গী জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে মাত্র আটটি আসন। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে ঐক্যফ্রন্টের জয়ী প্রার্থীরা সংসদ সদস্য হিসেবে এখনো শপথ নেননি।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
ফেব্রুয়ারি ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জানুয়ারি   মার্চ »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া