২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

বাম হাত নাড়াততে পারছেন না খালেদা জিয়া : খন্দকার মাহবুব

নিজস্ব প্রতিবেদক : আর্থারাইটিসের সমস্যার জন্য কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বাম হাত নাড়াতে সমস্যা হচ্ছে বলে তার সঙ্গে দেখা করে এসে জানিয়েছে খন্দকার মাহবুব হোসেন।

বিএনপি নেত্রীর এই আইনজীবী বলেন, ‘হাঁটুতে ব্যাথা না থাকলেও হাতের ব্যাথার কারণে তিনি (খালেদা জিয়া) পিঠেও ব্যথা অনুভব করছেন।

শনিবার বিকালে কারাগারে বিএনপি নেত্রীর সঙ্গে দেখা করেন খন্দকার মাহবুব হোসেনসহ পাঁচ আইনজীবী।

ছিলেন প্রবীণ আইনজীবী আব্দুর রেজ্জাক খান, সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বকশিবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আখতারুজ্জামান। ওই দিনই খালেদা জিয়াকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

গত ২৮ মার্চ থেকে খালেদা জিয়ার অসুস্থতার গুঞ্জন ছড়ায়। আর তাকে বেসরকারি হাসপাতাল ইউনাইটেডে নিয়ে যাওয়ার দাবি করছে বিএনপি। আর সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিএনপি এ নিয়ে রাজনীতি করছে।

সম্প্রতি বিএনপির সংবাদ সম্মেলনে মুক্ত থাকা অবস্থায় খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় থাকা তিন জন চিকিৎসকের একজন জানিয়েছেন, খালেদা জিয়া পক্ষাঘাত বা প্যারালাইসিসে আক্রান্ত হতে পারেন। অন্য একজন চিকিৎসক বলেছেন, খালেদা জিয়া অন্ধ হয়ে যেতে পারেন। আরও একজন বলেছেন, খালেদা জিয়ার প্রস্রাব-পায়খানা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘মানসিকভাবে সুস্থ থাকলেও শারীরিকভাবে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। সঠিক চিকিৎসা না হওয়ায় দিনদিন অসুস্থতা বাড়ছে। তিনি আর্থারাটিসের রোগী। বাম হাত নাড়াচাড়া করতে তার সমস্যা হচ্ছে। তার ফিজিওথেরাপি দরকার। কিন্তু কারাগারে তো সেই ব্যবস্থা নেই। হাতের ব্যাথার কারণে তার পিঠে ব্যাথা হচ্ছে।’

“আমি জানতে চেয়েছিলাম হাঁটুতে ব্যাথা আছে কি না। ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) বলেছেন, ‘না, হাঁটুতে এখন ব্যাথা নেই’।”

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া জামিন পাওয়ার প্রত্যাশী বলেও জানান খন্দকার মাহবুব।

‘আমরা ৮ তারিখের শুনানিতে জামিনের ব্যাপারে আশাবাদী। কারণ পাঁচ বছরের সাজা হয়েছে বেগম খালেদা জিয়ার । উভয়পক্ষের শুনানি শেষে হাইকোর্ট জামিন দেয়ার পরও সুপ্রিম কোর্ট জামিন স্থগিত করেছে যা নজিরবিহীন। তারপরও আমরা আশা করছি আপিল বিভাগ থেকে তিনি জামিন পাবেন।’

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় বাসে পেট্রল বোমা মামলা মামলাতেও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে। এই মামলায় তার জামিন না হলে কী হবে-এমন প্রশ্নে খন্দকার মাহবুব বলেন, ‘এই মামলায় জামিন হলে তিনি (খালেদা জিয়া) অন্য মামলাগুলোতেও জামিন পাবেন। কারণ, তিনি কুমিল্লায় গিয়ে বাসে আগুন দিয়েছেন কি দেয়নি সেটা সবাই জানে।’

‘চেয়ারপারসন বলেছেন আমি তো কোনো অন্যায় করিনি, আমাকে কেন সাজা খাটতে হচ্ছে।’

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
মে ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« এপ্রিল   জুন »
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া