১৩ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৯শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

নিরাপত্তা সংস্থার ভাতা কমানোর প্রস্তাব

police-1419876442নিজস্ব প্রতিবেদক : পুলিশসহ দেশের সব নিরাপত্তা সংস্থার ভাতা কমছে। সরকারি চাকুরিজীবীদের জন্য প্রস্তাবিত বেতন কাঠামো বাস্তবায়ন হলে সেবাখাত ও নিরাপত্তা সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দেওয়া বিশেষ ভাতা সমন্বয় বা কমানোর সুপারিশ করে পে-কমিশন। সম্প্রতি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে হস্তান্তর করা পে-কমিশনের প্রতিবেদনে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে।

পে-কমিশনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, আনসার ও ভিডিপি, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই), র‌্যাব, বিজিবি, নার্সসহ আরো কয়েকটি পেশার লোকজনের বিশেষ ভাতা চালু রয়েছে। কমিশনের সুপারিশ হচ্ছে, বর্ধিত বেতন কাঠামোর পরিপ্রেক্ষিতে এ ভাতা যৌক্তিকীকরণ ও সমন্বয় করা যেতে পারে। জানা গেছে, পে-কমিশনের প্রতিবেদন তৈরি করার সময় এ সম্পর্কে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন সংস্থা, প্রতিষ্ঠান ও পেশার মানুষদের মতামত নেওয়া হয়। এখানে বিভিন্ন বাহিনীর জন্য বিদ্যমান ভাতার বিষয়টিও ওঠে আসে। মতামতে বলা হয়, এ সব লোক অধিকাংশ ঝুঁকিভাতা পেয়ে থাকেন। এই ঝুঁকিভাতা প্রশাসনে এক ধরনের বৈষম্যের সৃষ্টি করছে। তাই এ ধরনের ভাতা রদ বা যৌক্তিকীকরণ করার প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের আগস্ট মাসে শুধু পুলিশের জন্য ৩০ শতাংশ ঝুঁকিভাতা ঘোষণা করে সরকার। ৫ জানুুয়ারি নির্বাচনের আগে ভাতা বাড়ানোর একটি প্রস্তাব অর্থমন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়। এরপর দ্রুত প্রস্তাবটি অনুমোদন করিয়ে নেওয়া হয়। প্রায় সোয়া এক লাখ পুলিশ এখন ৩০ শতাংশ ঝুঁকিভাতা পেয়ে আসছেন। এ জন্য বছরে সরকারকে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা ব্যয় করতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ২০০৪ সালে র‌্যাব প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই বাহিনীর সদস্যরা বিশেষ ভাতা পেয়ে আসছে। এ ভাতার হার ৭০ শতাংশ।

একই সঙ্গে অন্যান্য বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন ধরনের বিশেষ ভাতা পেয়ে আসছে। এখন যেহেতু পে-কমিশনের প্রস্তাবে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনভাতা শতকরা শতভাগ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে, তাই বিভিন্ন বাহিনীর জন্য বিশেষ ভাতা থাকার যৌক্তিকতা কমে এসেছে।

এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রণালয়ের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা  জানান, কমিশনের সুপারিশ পুরোপুরি বাস্তবায়ন হলে কমে যেতে পারে সেবাখাত ও আইনশৃংখলা রক্ষাকারী কয়েকটি সংস্থার বিশেষ ভাতা।

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এবারের পে-কমিশন যেভাবে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বাড়িয়েছে, এর আগে কখনো এভাবে বাড়ায়নি। বেতন বাড়লে ভাতা কিছুটা কমতেই পারে। আর সেটা বোঝা যাবে মন্ত্রণালয়ের পর্যালোচনার পর। তাই এর আগে নিশ্চিত করে কিছুই বলা যাবে না।’

অর্থ বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, পে-কমিশন তাদের প্রতিবেদনে বিভিন্ন বাহিনীর ঝুঁকিভাতা কমানো বা যৌক্তিকীকরণের যে সুপারিশ করেছে তা বাস্তবসম্মত। কিন্তু তা বাস্তবায়ন করা যেকোনো সরকারের পক্ষেই কঠিন। তাই আপাতত এই ভাতা যৌক্তিকীকরণের কোনো সম্ভাবনা আমরা দেখতে পাচ্ছি না। কারণ এটি স্পর্শকাতর বিষয় এবং এ জন্য রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের প্রয়োজন রয়েছে।

 

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
ডিসেম্বর ২০১৪
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« নভেম্বর   জানুয়ারি »
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া