১০ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৬শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

ফারহান লঞ্চের মাস্টার ও সুপারভাইজারকে জরিমানা

লঞ্চ {focus_keyword} ফারহান-৭, মাস্টার ও সুপারভাইজারকে জরিমানা 15 08 12 Pustogala Bridge 2 e1412996284666ডেস্ক রিপোর্ট : সরকারি আইন অমান্য করে অতিরিক্ত যাত্রি পরিবহনের অপরাধে ঝালকাঠি-ঢাকা নৌরুটে এমভি ফারহান-৭ লঞ্চের মাস্টার ও সুপারভাইজারকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। 
শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ফারহান-৭ লঞ্চ থেকে ৫শ যাত্রী নামিয়ে দেয় বন্দর বিভাগ। এ নিয়ে বরিশাল নৌ-বন্দরের টার্মিনালে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি বেগতিক হয়ে উঠলে প্রশাসন ও বন্দর বিভাগের হস্তক্ষেপে শান্ত হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ফারহান-৭ ঝালকাঠি থেকে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই করে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলো। বিষয়টি বন্দর বিভাগ প্রত্যক্ষ করে লঞ্চটি সদর উপজেলা চরমোনাই সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদী থেকে বরিশাল টার্মিনালে নিয়ে আসে। এসময় ধারণক্ষমতার অধীক যাত্রী বহনের অভিযোগে প্রায় ৫শতাধিক যাত্রী নামিয়ে দেয়া হয়।

পরে এসব যাত্রীদের টিকিট ফেরত দিতে লঞ্চ স্টাফরা অনিহা প্রকাশ করলে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে যাত্রীদের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে নৌ-পুলিশ ও বন্দর বিভাগের কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে শান্ত হয়। এসময় চাপের মখে সব যাত্রীদের টিকিটের টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয় লঞ্চ স্টাফরা। তবে রাতে লঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়ার কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।
ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়, লঞ্চটিকে ঘাটে ফিরিয়ে এনে অতিরিক্ত যাত্রী নামিয়ে দিয়ে লোড লাইন ঠিক করা হয়। সরকারি আইন অমান্য করায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট দীপক কুমার রায় লঞ্চের মাস্টার শেখ মো. আমির হোসেনকে ১০ হাজার টাকা ও সুপারভাইজার মৌজে আলীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। বরিশাল বন্দর কর্মকর্তা মো. শহীদুল্যাহ জানান, সার্ভে সার্টিফিকেট অনুযায়ী লঞ্চটিতে সাড়ে ৬শ’ যাত্রী পরিবহনের অনুমোতি রয়েছে। কিন্তু স্টাফরা সহাস্রাধিক যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়া হয়। পরে খবর দিয়ে লঞ্চটিকে ঘাটে এনে ৫শ’ যাত্রী নামিয়ে দেয়া হয়। ওই যাত্রীদের বেশ কিছু যাত্রীকে পরবর্তী একটি লঞ্চে আবার উঠিয়ে দেয়া হয়।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া