২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

মুন্সিগঞ্জে শিশুদের রক্তে সিসা

5284f53d7f0b3-munsigonjমুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলায় শিশুদের রক্তে সিসা পেয়েছেন ঢাকা কমিউনিটি হাসপাতাল ও যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। আজ বৃহস্পতিবার কমিউনিটি হাসপাতালে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ২০ থেকে ৪০ মাস বয়সী ২৮০ জন শিশুর রক্ত পরীক্ষা করে এই গবেষক দল। তাতে দেখা গেছে, ২২৭ জন শিশু অর্থাত্ ৮০ শতাংশ শিশুর শরীরে মাত্রাতিরিক্ত সিসা আছে।



কমিউনিটি হাসপাতাল ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের হার্ভার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথ ২০০০ সাল থেকে সিরাজদিখানে আর্সেনিক নিয়ে গবেষণা করছে। সেই গবেষণার ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে শিশুদের রক্ত পরীক্ষা করা হয়। সিসার বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার জন্য নমুনা যুক্তরাষ্ট্রে পরীক্ষা করা হয়। সিসার উপস্থিতির ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার জন্য গবেষণার ফলাফল জানাতে বিলম্ব হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়। এর সঙ্গে বাংলাদেশের একটি কোম্পানির হলুদে সিসা পাওয়ার ঘটনার কোনো সম্পর্ক নেই।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্যে বলা হচ্ছে, কী মাত্রায় সিসার উপস্থিতি নিরাপদ, তা এখনো অজানা। গবেষক দল কোন মাপকাঠির ভিত্তিতে রক্তে বা হলুদে ‘মাত্রাতিরিক্ত’ সিসার উপস্থিতির কথা বলছে—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে কমিউনিটি হাসপাতালের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী কামরুজ্জামান বলেন, খাদ্যে বা রক্তে সিসার উপস্থিতিই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

সংবাদ সম্মেলনের মূল উপস্থাপনায় হাসপাতালের পরিচালক (গবেষণা) গোলাম মোস্তফা বলেন, ২০১৩ সালে সিরাজদিখানের ১৮টি পরিবারের চাল, ডাল, হলুদের গুঁড়া, মরিচের গুঁড়া, মাটি, শিশুর ঘরের ধুলার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ১২টি পরিবারের হলুদের গুঁড়ায় মাত্রাতিরিক্ত সিসা পাওয়া গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের স্নায়ুবিদ মৈত্রী মজুমদার বলেন, ‘শিশুদের রক্তে সিসার উপস্থিতিতে আমরা অবাক হয়েছিলাম।’ সিসার উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার জন্য শিশুদের আঙুল থেকে রক্ত নিয়ে তা যুক্তরাষ্ট্রে পরীক্ষা করা হয়। তিনি বলেন, সিসা শিশুর স্নায়ুবিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত করে।

শিশুদের রক্তে বা হলুদের গুঁড়ায় সিসার উত্স কী, সে সম্পর্কে সংবাদ সম্মেলনে কিছু জানানো হয়নি। এ সম্পর্কে প্রশ্নের উত্তরে কাজী কামরুজ্জামান বলেন, গবেষণা চলমান। খুব শিগগির এ বিষয়ে জানানো সম্ভব হবে। তিনি বলেন, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার দায়িত্ব সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের। তাদের এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

জয় পরাজয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
নভেম্বর ২০১৩
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই   ডিসেম্বর »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া